খবর ডেস্ক
মে ২৯, ২০২২
১১:০৩ পূর্বাহ্ণ
উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা রিয়াল মাদ্রিদের ঘরে

উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের শিরোপা রিয়াল মাদ্রিদের ঘরে

২০১৮ সালের প্রতিশোধ নিতে মাঠে নেমেছিল লিভারপুল। আর কোয়াড্রপল জেতার লক্ষ্যে রিয়াল মাদ্রিদ। প্রতিশোধ নেওয়া হলো না লিভারপুলের। হতাশা নিয়েই মাঠ ছাড়তে হলো অলরেডদের।

লিভারপুলকে ১-০ গোলে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জিতেছে রিয়াল মাদ্রিদ। খেলার দ্বিতীয়ার্ধে রিয়ালের ব্রাজিলিয়ান ফরোয়ার্ড ভিনিসিয়াস জুনিয়রের গোল জয় এনে দিয়েছে রিয়াল মাদ্রিদকে। চ্যাম্পিয়নস লিগের ১৪তম শিরোপা শোকেসে তুলেছে লস ব্লাঙ্কোসরা।

দুর্দান্ত সব সেভ করে ফাইনালে নায়ক হয়ে রইলেন গোলরক্ষক থিবো কর্তোয়া।

লিভারপুলের আক্রমণের সামনে রীতিমত কোণঠাসা ছিল রিয়াল। মোট ২৪টি শট নেয় লিভারপুল, যার ৯টি ছিল লক্ষ্যে। অন্যদিকে মাত্র ৪ শটের দুটি লক্ষ্যে রাখতে পেরেছিল রিয়াল। একটিতে তারা গোল আদায় করে নেয়, অন্য শটও জালে জড়িয়েছিল। অফসাইডের কারণে বাতিল হয়ে যায়।

ফ্রান্সের স্তাদে দে ফ্রান্স স্টেডিয়ামে উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনালে মুখোমুখি হয় স্প্যানিশ জায়ান্ট রিয়াল মাদ্রিদ ও ইংলিশ ক্লাব লিভারপুল।

বাংলাদেশ সময় রোববার রাত ১টায় ম্যাচটি শুরু হওয়ার কথা ছিল। তবে স্টেডিয়ামের বাইরে বিশৃঙ্খলার ফলে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের ফাইনাল কিক-অফ বিলম্বিত হয়েছে। অবেশেষে বাংলাদেশ সময় রাত ১টা ৩৬ মিনিটে খেলা শুরু হয়।

কে জিতবে এবারের ফাইনাল? কার হাতে যাবে ইউরোপের শ্রেষ্ঠত্বের ট্রফি? এমন টানটান উত্তেজনা ছিল খেলা চলাকালে। অবশেষে খেলার ৫৯ মিনিটে ফেদেরিকো ভালভার্দের এগিয়ে দেয়া বল ডান পায়ে শট করেন ভিনিসিউস জুনিয়র। আর এর মাধ্যমেই খেলার একমাত্র গোলটি করেন তিনি।

তবে দুর্ভাগ্য লিভারপুলের। তারা দারুণ খেলেও জয় পায়নি। পুরো ম্যাচে প্রভাব বিস্তার করে খেলে প্রায় এক ডজন অন টার্গেটে শট নিয়েও জালের নাগাল পায়নি। তাতে করে ২০১৮ সালের মতো ২০২২ সালেও রিয়ালের কাছে হেরে রানার্স-আপ হয়েই সন্তুষ্ট থাকতে হয় তাদের।

ম্যাচের ১৬ মিনিটের মাথায় মোহামেদ সালাহর ক্লোজ রেঞ্জ শট বাঁদিকে ঝাঁপিয়ে ফেরান রিয়াল গোলরক্ষক। ২১ মিনিটে সাদিও মানে তো গোলই পেয়ে যাচ্ছিলেন প্রায়, এবারও কর্তোয়ায় বেঁচে যায় রিয়াল। তার হাতে সরানো বল গিয়ে লাগে পোস্টে।

৪২ মিনিটে সতীর্থের বাড়ানো থ্রো বল একদম এলিসনের সামনে পেয়ে দুই তিনবার লিভারপুল গোলরক্ষককে কাটিয়ে জড়িয়ে দেন জালে। কিন্তু অফসাইডের কারণে গোলটি হয়নি রিয়ালের।

গোলশূন্য ড্র নিয়ে বিরতিতে যায় দুই দল।

দ্বিতীয়ার্ধে নেমেই একের পর এক আক্রমণ চালিয়ে যায় লিভারপুল। কিন্তু সেই কর্তোয়া প্রাচীর ভেদ করতে পারেনি।

৫৯ মিনিটে উল্টো সফল হয় রিয়াল। ভালভার্দের পাস বক্সের মাঝে বেনজেমাকে পার করে খুঁজে পায় ভিনিসিয়াস জুনিয়রকে। আলতো ছোঁয়ায় সেটি জাল ঠেলে দেন ব্রাজিলিয়ান তারকা। ১-০ তে এগিয়ে যায় রিয়াল।

৬৪ মিনিটে সালাহর বাঁ পায়ের বুলেট গতির শট ঝাঁপিয়ে পড়ে ফেরান কর্তোয়া। ৮২ মিনিটেও ব্যর্থ হন মিসরীয় ফরোয়ার্ড।

শেষ পর্যন্ত আর গোলের দেখা পায়নি লিভারপুল।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *