নিজস্ব প্রতিবেদক
ফেব্রুয়ারি ২৩, ২০২২
৬:৫০ অপরাহ্ণ
একমাত্র কর্মসংস্থান বাঁচিয়ে রাখতে চায় ভোলাগঞ্জ ক্ষুদ্র পাথর ব্যবসায়ী সমিতি

একমাত্র কর্মসংস্থান বাঁচিয়ে রাখতে চায় ভোলাগঞ্জ ক্ষুদ্র পাথর ব্যবসায়ী সমিতি

সিলেটের কোম্পানীগঞ্জ উপজেলার একমাত্র কর্মসংস্থান বাঁচি রাখতে চায় ভোলাগঞ্জ ক্ষুদ্র পাথর ব্যবসায়ী সমিতি। এ লক্ষে ভোলাগঞ্জ চুনাপাথর আমদানি কারক গ্রুপের অফিসে বুধবার দুপুর ১২ টায় এক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ভোলাগঞ্জ ক্ষুদ্র পাথর ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি আব্দুস সামাদের সভাপতিত্বে ও সাধারণ সম্পাদক পারবেজ এর সঞ্চালনায় এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভোলাগঞ্জ চুনাপাথর আমদানি কারক গ্রুপের সভাপতি সাহাব উদ্দিন।

সভায় বক্তারা বলেন, প্রতি বছর ভোলাগঞ্জ শুল্ক স্টেশন থেকে ৪০ কোটি টাকারও বেশি রাজস্ব পেয়ে থাকে সরকার। ভোলাগঞ্জ আমদানি কারক গ্রুপের সদস্য সিলেট জেলার শ্রেষ্ঠ করদাতাও নির্বাচিত হয়েছেন। কোটি কোটি টাকা সরকারের রাজস্ব দেওয়া এ-সব ব্যবসায়ীদের ক্ষতি করতে পেছনে উঠেপড়ে লেগেছে একটি মহল। যারা তাদের স্বার্থ রক্ষার জন্য কোম্পানীগঞ্জকে মরুভূমি বানিয়ে রেখেছে।

এ সময় বক্তারা আরো বলেন, যেহেতু ভোলাগঞ্জ সাদা পাথর দেশের জনপ্রিয় একটি পর্যটন কেন্দ্র এবং সপ্তাহিক ছুটির দিনে এখানে বেশি পর্যটক আসেন। সেজন্য এখানকার ব্যবসায়ীরা প্রতি শুক্র ও শনিবার মিনি ক্রাশার বন্ধ রাখবেন। যাতে করে পর্যটকদের আসা-যাওয়াতে কোন সমস্যা না হয়। তারা আরো বলেন, পুরো কোম্পানীগঞ্জের কর্মক্ষেত্র এখন প্রায় বন্ধ। শুধু মাত্র এই শুল্ক স্টেশনের আমদানি করা পাথর দিয়ে এখানে যে কয়টি মিনি ক্রাশার (টমটম) চলে সেগুলোর মাধ্যমে কয়েক হাজার শ্রমিক ও ব্যবসায়ী তাদের জীবিকা নির্বাহ করছে। ভারতীয় গাড়ির পাথর খালাস করা থেকে শুরু করে পাথর ভাঙ্গা পর্যন্ত যে শ্রমিক গুলো কাজ করে তাদের অর্ধেকই কোম্পানীগঞ্জের বাসিন্দা। এর বাহিরে সুনামগঞ্জ, নেত্রকোনা সহ দেশের বিভিন্ন জায়গা থেকে কাজ করার জন্য মানুষ আসেন এই ভোলাগঞ্জে। তাই কোম্পানীগঞ্জের মানুষের বেঁচে থাকার জন্য এই কর্মক্ষেত্রটি সচল রাখা অত্যন্ত জরুরি।

সভায় বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ভোলাগঞ্জ চুনাপাথর আমদানি কারক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক মুজিবুর রহমান মিন্টু, কোম্পানীগঞ্জ প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আবিদুর রহমান, আমদানি কারক গ্রুপের কার্যকরি সদস্য সিরাজুল ইসলাম সিরাজ, নুরুল ইসলাম, সুন্দর আলী কোম্পানীগঞ্জ অনলাইন প্রেসক্লাবে সাধারণ সম্পাদক আব্দুল জলিল।

আরো উপস্থিত ছিলেন, ব্যবসায়ী শানুর আলী, আঙ্গুর মিয়া, আব্দুর রাজ্জাক, ফখরুল ইসলাম, গিয়াস উদ্দিন বতুল্লাহ, এখলাছুর রহমান, আব্দুল সামাদ, লোকমান আহমদ, শাহ আলম ভুঁইয়া, আব্দুল লতিফ ভেরাই, মানিক মিয়া, সামছুল ইসলাম প্রমুখ।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *