মোঃ আব্দুল মালেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
মার্চ ২৩, ২০২২
৮:০৮ অপরাহ্ণ
নওগাঁর রাণীনগরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও দুর্নীতির অভিযোগ

নওগাঁর রাণীনগরে ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও দুর্নীতির অভিযোগ

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার ছাতারদিঘী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষক সৈয়দা হাসিনা আনোয়ারের বিরুদ্ধে অর্থ আত্মসাৎ ও দুর্নীতির অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের সরকারি ও স্থানীয় ব্যক্তিবর্গের অনুদানের টাকা আত্মসাৎ করেছেন বলে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতিসহ কয়েকজন উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। দ্রুত এ ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়েছেন অভিযোগকারীরা।

লিখিত অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার ৮২নং ছাতারদিঘী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের নামে “সোনালী ব্যাংক রাণীনগর শাখায়” ব্যাংক হিসাব নম্বরে বিদ্যালয়ের নামে সরকারি অনুদান ও স্থানীয় ব্যাক্তিবর্গের অনুদানের টাকা জমা রাখা ছিলো। বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজের জন্য বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সৈয়দা হাসিনা আনোয়ার ম্যানেজিং কমিটির সদস্য সচিব ও সভাপতি আফজাল হোসেনের যৌথ স্বাক্ষরে গত ২১ সালের জুন মাসে ৬৩ হাজার টাকা ও আগষ্ট মাসের ২৬ হাজার টাকা ব্যাংক থেকে উঠানো হয়। এরপর নিয়ম অনুযায়ী ম্যানেজিং কমিটির সভায় অনুমোদন ক্রমে টাকা খরচ করিয়া খরচের ভাউচার সংরক্ষণ করতে হয়। কিন্ত প্রধান শিক্ষিকা সৈয়দা হাসিনা আনোয়ার ম্যানেজিং কমিটির সভাপতির স্বাক্ষর নিয়ে তিনি সদস্য সচিব হিসাবে ব্যাংক থেকে টাকা উঠানোর পর শিক্ষিকা কি কি খাতে টাকাগুলো খরচ করেছেন এবং খরচের হিসাব ম্যানেজিং কমিটিকে জানাইনি। আবার উত্তোলনকৃত মোট ৮৯ হাজার টাকা স্কুলের উন্নয়নে খরচ না করে আত্মসাৎ করেছেন বলে লিখিতভাবে বলা হয়েছে। এ ঘটনায় চলতি মাসের ৩ তারিখে রাণীনগর উপজেলা প্রাথমকি শিক্ষা কর্মকর্তাসহ বিভিন্ন দপ্তরে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি, সদস্য ও বিভিন্নপদে থাকা ৭ জন স্বাক্ষরিত লিখিত অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে।

ছাতারদিঘী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি আফজাল হোসেন জানান, বিদ্যালয়ের উন্নয়ন কাজের কথা বলে ব্যাংক থেকে টাকা উঠানোর জন্য আমার কাছ থেকে প্রধান শিক্ষক স্বাক্ষর নিয়েছে। কিন্তু উত্তোলনকৃত ৮৯ হাজার টাকা প্রধান শিক্ষিকা কি কি খাতে খরচ করেছেন তার কোন হিসাব বা বিল ভাউচার ম্যানেজিং কমিটিকে দেয়নি ও জানাইনি। তাই প্রধান শিক্ষিকার এসব দুর্নীতির বিষয়ে আমিসহ ৭ জন বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছে। এ ঘটনায় তদন্ত সাপেক্ষে দ্রুত আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানাচ্ছি।

এদিকে সকল অভিযোগ অস্বীকার করে ছাতারদিঘী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা সৈয়দা হাসিনা আনোয়ার বলেন, আমার বিরুদ্ধে যে সকল অভিযোগ করা হয়েছে তা সম্পূর্ণ মিথ্যা। সভাপতির সাথে আমাদের পারিবারিক দ্বন্দের জে¦রের কারণে সভাপতিসহ তার শুভাকাক্ষী কয়েকজন আমার বিরুদ্ধে এসব মিথ্যা অভিযোগ দিয়েছেন।

এ ব্যাপারে রাণীনগর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন বলেন, লিখিত অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত চলমান রয়েছে। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *