সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০
১:৫৭ অপরাহ্ণ

ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মীদের চাকরি স্থায়ীকরণের দাবিতে সংবাদ সম্মেলনে

ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মীদের চাকরি স্থায়ী করার দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল সার্ভিস একতা কল্যাণ পরিষদ। নেতারা বলেছেন, ঘরে ঘরে চাকরি দেওয়ার কথা বলে ঘটা করে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি প্রকল্প উদ্বোধন কেবল লোক দেখানো ছিল। ২ লাখ ৩৮ হাজার কর্মীর আবারও বেকার হয়ে পড়া তার জলজ্যান্ত প্রমাণ।

সোমবার ১৪ সেপ্টেম্বর জাতীয় প্রেস ক্লাবের জহুর হোসেন চৌধুরী হলে সংবাদ সম্মেলনে এ দাবি জানানো হয়। এতে লিখিত বক্তব্য উপস্থাপন করেন পরিষদের সভাপতি আতিক হাসান রাজা। সংহতি জানিয়ে বক্তব্য দেন সিপিবির সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য আবদুল্লাহ কস্ফাফী রতন, সমাজতান্ত্রিক শ্রমিক ফ্রন্টের সভাপতি রাজেকুজ্জামান রতন প্রমুখ।

সংবাদ সম্মেলনে ঘরে ঘরে চাকুরির অঙ্গিকার বাস্তবায়নের নামে প্রধানমন্ত্রীর ‘ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচি’কে জাতির সঙ্গে মহাপ্রতারণা বলে অভিহিত করে বলা হয়, ক্ষমতাসীন দলের ২০০৮ সালের নির্বাচন পূর্ব অঙ্গিকার ‘দিন বদলের সনদ’-এ প্রতি পরিবারে অন্তত একজনকে চাকুরি দেওয়ার কথা বাস্তবায়নের নামে ২০১০ সালের মার্চ মাসে কুড়িগ্রামে ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মসূচির উদ্বোধন করা হয়। পরবর্তীতে দেশের ৩৭ জেলায় ২ লাখ ৩৮ হাজার নারী-পুরুষকে এই কর্মসূচির আওতায় নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। প্রশিক্ষণ শেষে বিভিন্ন খাতে তারা যোগদান করে। দুর্ভাগ্যজনকভাবে দুই বছরের মাথায় ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মীদের প্রকল্পের মেয়াদ শেষ হওয়ায় তারা পুনরায় বেকার হয়ে পড়েছে। বেকার হয়ে পড়া ন্যাশনাল সার্ভিস কর্মীরা শুধু অর্থনৈতিকভাবেই ক্ষতিগ্রস্থ হয়নি, তারা সামাজিকভাবেও নিগৃহীত হয়েছেন। যারা জাতির ভবিষ্যৎ প্রজন্মের সঙ্গে বিশ্বাসঘাতকতা করেছে তারা এর উপযুক্ত জবাব পাবে।

এ সময় ন্যাশনাল সার্ভিস প্রকল্প কর্মীদের চাকরি স্থায়ীকরণ ও মেয়াদ শেষ হওয়া সকল কর্মীর পুনর্বহালের আন্দোলন কর্মসূচি ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ন্যাশনাল সার্ভিস একতা কল্যাণ পরিষদ। ঘোষিত কর্মসূচি অনুযায়ী অক্টোবর মাসব্যাপী জেলা ও বিভাগীয় কনভেনশন, আগামী ৪ নভেম্বর ঢাকার শাহবাগে সংহতি সমাবেশ; ১৬ নভেম্বর জেলায় জেলায় বিক্ষোভ এবং ২৮ নভেম্বর ঢাকায় মহাসমাবেশ অনুষ্ঠিত হবে।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *