ফেব্রুয়ারি ৩, ২০২১
১০:০৯ পূর্বাহ্ণ

ভাঙাড়ি বিক্রেতা থেকে মদ ফ্যাক্টরির প্রধান কেমিস্ট!

খবর ডেক্সঃ- জাহাঙ্গীর আলম টেনেটুনে স্কুলের গণ্ডি পেরিয়েছিলেন। চাঁদপুর থেকে রাজধানীতে এসে একসময় পুরান ঢাকার নিমতলী এলাকায় ভাঙাড়ির দোকানে চাকরি নেন। টোকাইদের কাছ থেকে বোতল সংগ্রহ করে তা বিক্রি করতেন। সেই জাহাঙ্গীর এখন ‘বিদেশি মদ’ তৈরির ফ্যাক্টরির প্রধান রসায়নবিদ (কেমিস্ট)! বিদেশে বসে নয়, রাজধানী ঢাকাতেই তৈরি করতেন নামিদামি ব্র্যান্ডের মদ। তার তৈরি সেই বিদেশি মদপানে এরই মধ্যে মারা গেছেন অনেকে। সম্প্রতি মদপানে মৃত্যুর খবরে চাঞ্চল্য সৃষ্টি হলে গোয়েন্দা পুলিশ (ডিবি) জাহাঙ্গীর ও নকল কারখানার মালিক নাসির আহম্মেদ ওরফে রুহুলসহ ছয়জনকে গ্রেপ্তার করলে এ তথ্য বেরিয়ে আসে।

ডিবি সূত্র জানায়, জাহাঙ্গীরের তৈরি নকল মদপান করে ঢাকায় এ পর্যন্ত ছয়জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত হতে পেরেছে ডিবি। তবে খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, গত এক মাসে ঢাকা, গাজীপুর ও বগুড়ায় নকল মদপানে অন্তত ৩০ জনের মৃত্যু হয়েছে। তাদের মধ্যে ঢাকাতেই মারা যান ১২ জন।

ডিবি কর্মকর্তারা বলছেন, ঢাকার ভাটারার খিলবাড়ী টেক এলাকায় একটি বাড়িতে গড়ে ওঠা নাসিরের মালিকানাধীন মদের কথিত কারখানায় প্রধান কেমিস্ট হিসেবে কাজ করতেন জাহাঙ্গীর। কারখানাটির ম্যানেজার হিসেবে দায়িত্ব পালন করতেন সৈয়দ আল আমিন। ওই কারখানা থেকে রেদওয়ান উল্লাহ, সাগর বেপারী ও মনোতোষ চন্দ্র অধিকারী ওরফে আকাশ পাইকারি মদ কিনে তা ঢাকা ও আশপাশের এলাকায় সরবরাহ করতেন। সোমবার রাতে ডিবির গুলশান বিভাগের টিম তেজগাঁও এলাকা থেকে তিন সরবরাহকারীকে গ্রেপ্তারের পর সন্ধান পায় কথিত কারখানাটির। এরপর খিলবাড়ী টেকে অভিযান চালিয়ে মালিক, কেমিস্টসহ ওই তিনজনকে গ্রেপ্তার করে। সেখান থেকে বিপুল পরিমাণ নকল মদ ও মদ তৈরির উপাদান জব্দ করা হয়। ওই অভিযানে নেতৃত্ব দেওয়া ঢাকা মহানগর গোয়েন্দা পুলিশের (ডিবি) গুলশান বিভাগের উপকমিশনার মশিউর রহমান সমকালকে বলেন, সম্প্রতি মদপানে রাজধানীতে ছয়জনের মৃত্যু হয়। এসব মৃত্যুর কারণ অনুসন্ধান করতে গিয়ে জানতে পারেন, নকল মদপানে তারা মারা গেছেন। এরপর নকল মদ তৈরির কারখানা শনাক্তে গোয়েন্দা কার্যক্রম শুরু হয়। সোমবার রাতে ভাটারা এলাকায় নকল মদ তৈরির কারখানার সন্ধান মেলে। ওই কারখানা সংশ্নিষ্ট ছয় সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়।

ডিবির এই কর্মকর্তা জানান, নকল মদ তৈরি ও বিক্রির ঘটনায় ভাটারা থানায় গ্রেপ্তার ছয়জনের বিরুদ্ধে বিশেষ ক্ষমতা আইনে মামলা হয়েছে। ওই মামলায় গতকাল তাদের আদালতের মাধ্যমে পাঁচ দিন করে রিমান্ডে নেওয়া হয়। মদের নামে মূলত বিষ খাইয়ে এরা ছয়জনকে হত্যা করেছে। এ জন্য তাদের বিরুদ্ধে আলাদা মামলা হবে।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *