মোঃ আব্দুল মালেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
এপ্রিল ১১, ২০২২
৫:১৫ অপরাহ্ণ
রাণীনগরের পারইল ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়!

রাণীনগরের পারইল ইউপি চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে অভিযোগের পাহাড়!

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার ৪নং পারইল ইউপি চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা জাহিদুর রহমান জাহিদের বিরুদ্ধে টিকাদানের টাকা আত্মসাৎ, জন্ম নিবন্ধনে অতিরিক্ত অর্থ আদায় ও বিএনপির দলীয় মিটিং পরিষদে করাসহ নানান অভিযোগ উঠেছে। সম্প্রতি পরিষদের ১০ জন মেম্বার একযোগে চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে এসব অভিযোগ এনে উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, নির্বাহী কর্মকর্তা ও জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দায়ের করেছেন। দ্রুত ওই চেয়ারম্যানের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন ইউপি সদস্যরা।

লিখিত অভিযোগে জানা যায়, উপজেলার পারইল ইউনিয়ন পরিষদের সকল সাধারণ সদস্য ও মহিলা সদস্যগণ সাবাই মিলেমিশে ইউনিয়নের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার চেষ্টা করে আসছিলেন। কিন্তু ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদুর রহমান জাহিদের আচার/আচরন ও ব্যবহার সন্তসজনক না বলে দাবি করা হয়েছে। আবার বিভিন্ন সরকারী অনুদান চেয়ারম্যান গোপন রাখেন। মেম্বারদের সাথে তা সমন্ময় না করেই নিজের ইচ্ছে মত কাজ চালিয়ে যান।

অভিযোগে আরও জানা যায়, করোনাকালীন টিকা প্রদানের ৩৫ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছে ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদ। ট্যাক্সের টাকার কোন প্রকার হিসাব প্রদান করে নাই। মেম্বাররা তা শুনতে চাইলে বলেন হিসেব প্রদানে ব্যধ্য নয় তিনি। সাধারন জনগনের সাথে ও মেম্বারদের সাথে খারাপ ব্যবহার করেন চেয়ারম্যান জাহিদ। আবার সাধারণ জনগনের কাছ থেকে জন্ম নিবন্ধনের প্রতিটি কাজের জন্য ৩০০/৫০০ টাকা আদায় করাসহ অফিশিযাল কোন প্রকার কোন মিটিং মেম্বারদের সহিদ করে না শুধু নটিশ প্রেরণ করেন। এছাড়া বিএনপির দলীয় মিটিং পরিষদে করেন ইউপি চেয়ারম্যান। মেম্বাররা তা নিষেধ করিলে হুমকি প্রদান করেন। আবার উপজেলা পরিষদের ড্রাম বিতরণের মাষ্টারোল মেম্বারদের কাছ থেকে ছিনিয়ে নেয় এবং বিএনপি দলীয় লোকদের মাঝে তা বিতরণ করেন বলে লিখিতভাবে অভিযোগে জানানো হয়। এতে করে এলাকার জনসাধারণ ও পরিষদের মেম্বারদের মাঝে চড়ম ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।

পারইল ইউপির ৫নং ওয়ার্ডের মেম্বার হেলাল হোসেন, ৭নং ওয়ার্ডের মেম্বার তোফাজ্জল হোসেনসহ কয়েকজন মেম্বার জানান, পরিষদের চেয়ারম্যান জাহিদ যোগদানের পর থেকেই এসবের সৃষ্টি হয়েছে। এর প্রতিকার চেয়ে আমরা ১০ জন সাধারণ মেম্বার ও মহিলা মেম্বার মিলে একযোগে গত ৪ এপ্রিল উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, জেলা প্রশাসকসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছি। দ্রুত এ ঘটনার তদন্ত সাপেক্ষে ইউপি চেয়ারম্যান জাহিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহনের দাবি জানিয়েছেন তারা।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে তার বিরুদ্ধে আনিত সকল অভিযোগ অস্বীকার করেছেন পারইল ইউপি চেয়ারম্যান ও বিএনপি নেতা জাহিদুর রহমান জাহিদ।

রাণীনগর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুশান্ত কুমার মাহাতো বলেন, অভিযোগ পেয়েছি। তদন্ত সাপেক্ষে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হবে।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *