নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
আগস্ট ৪, ২০২১
৭:২৬ অপরাহ্ণ
রাণীনগরে কিশোরীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ; যুবক গ্রেফতার

রাণীনগরে কিশোরীকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ; যুবক গ্রেফতার

নওগাঁর রাণীনগরে জনৈক এক কিশোরী (১৫) কে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে এক যুবকের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করা হয়েছে। এ ঘটনায় থানা পুলিশ মামলার আসামি মাসুদ রানা (২৯) কে গ্রেফতার করেছে। গ্রেফতারকৃত মাসুদ রানাকে বুধবার আদালতে পাঠিয়েছে পুলিশ। গ্রেফতার মাসুদ উপজেলার সদর ইউনিয়নের খট্টেশ্বর রণসিংগার পাড়া গ্রামের মনছের আলীর ছেলে।

জানা গেছে, উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের জনৈক ব্যক্তির ৬ষ্ঠ শ্রেণীতে পড়ুয়া কিশোরী মেয়ের সাথে মাসুদ তার নাম পরিচয় গোপন করে ছদ্ম নাম ইমরান হোসেন ধারণ করে মোবাইল ফোনে প্রেমের সর্ম্পক গড়ে তোলে। এক পর্যায়ে ওই কিশোরীকে বিয়ে করবে জানিয়ে তাকে ঢাকায় যেতে বলে। এ সময় যুবক মাসুদ রানা কিশোরীর সাথে দেখা করে কিশোরীর প্রেমিক জনৈক ইমরান তার বন্ধু হয় জানিয়ে তাকে পৌঁছে দেয়ার কথা বলে গত সোমবার সকালে ওই কিশোরীকে নিয়ে যায়। এরপর ঢাকা আমিনপুর বাজারে পৌঁছার পর ইমরান কোথায় কিশোরী এমনটি জানতে চাইলে মাসুদ জানায়, ছদ্ম নাম ইমরান হোসেন ধারণ করে মোবাইল ফোনে আমিই এত দিন প্রেম করেছি। এরপর মাসুদের প্রতারণা বুঝতে পেরে ওই ছাত্রী বাড়ি ফেরার জন্য কান্না কাটি শুরু করে। এতে রাতেই তাকে নিয়ে বগুড়াতে এসে একটি হোটেলে উঠে মাসুদ।

এ সময় রাতে তাকে বিয়ের প্রলোভনে কু-প্রস্তাব দিয়ে নানান ভাবে যৌন নিপীড়ন করতে থাকে। এ সময় ওই কিশোরী কান্না কাটি করে রুম থেকে বাহিরে আসলে তাকে সেখান থেকে নিয়ে মঙ্গলবার সকালে নওগাঁ তাজের মোড়ে নেমে দিয়ে যুবক মাসুদ রানা পালিয়ে যায়। এরপর কিশোরী তার পরিবারের লোকজনকে মোবাইল ফোনে জানালে পরিবারের লোকজন বাড়িতে নিয়ে আসে। কিশোরী মেয়ের সাথে ছদ্ম নামে প্রেমের অভিনয় ও ফুসলিয়ে অপহরণ করে মেয়ের ইচ্ছার বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়ন করেছে এমন অভিযোগ এনে মাসুদকে আসামী করে মেয়ের বাবা বাদি হয়ে মঙ্গলবার রাণীনগর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার প্রেক্ষিতে থানা পুলিশ মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করেছে।

রাণীনগর থানার ওসি (তদন্ত) তারেকুল ইসলাম বলেন, কিশোরী মেয়েকে যৌন নিপীড়নের অভিযোগে মেয়ের বাবা বাদি হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। আসামী মাসুদ রানাকে গ্রেফতার করে বুধবার সকালে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *