মোঃ আব্দুল মালেক, নওগাঁ জেলা প্রতিনিধি
এপ্রিল ৫, ২০২২
৪:৩৩ অপরাহ্ণ
রাণীনগরে পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ!

রাণীনগরে পল্লী বিদ্যুতের লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ!

নওগাঁর রাণীনগর উপজেলায় পল্লী বিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিংয়ে জনজীবন অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। গত কয়েক দিন থেকেই পবিত্র রমজানের ইফতার, সেহরী ও নামাজসহ রত-দিন দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ থাকছে না। ফলে চরম দূর্ভোগের শিকার হচ্ছেন উপজেলার পল্লী বিদ্যুতের গ্রাহকরা। এদিকে এ রমজান মাসে ইফতার, সেহরী ও নামাজের সময় বিদ্যুৎ না পাওয়াতে চড়ম ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মুসল্লিরা।

জানা যায়, উপজেলা জুড়ে পল্লী বিদ্যুতের প্রায় ৫৯ হাজার ৩৪০ জন গ্রাহক রয়েছে। এর মধ্যে উপজেলা সদরে ও আবাদপুকুর এলাকায় পল্লী বিদ্যুতের দুইটি সব-স্টেশন। গ্রহকদের মাঝে বিদ্যুৎ সরবরাহের জন্য দুইটি সাব-স্টেশনে ১০ টি ফিডারে বিভক্ত করা হয়েছে। আর এসব ফিডারের মাধ্যমে সকল গ্রহকদের মাঝে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা হয়ে থাকে।

খোঁজ নিয়ে জানা যায়, গত কয়েকদিন থেকে উপজেলায় বিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিং শুরু হয়েছে। দিন রাত ২৪ ঘন্টার মধ্যে দীর্ঘ কয়েক ঘন্টা থাকছে না বিদ্যুৎ। একদিকে প্রচন্ড তাপদাহ, ভেপসা গরম আবার সেই সাথে পল্লী বিদ্যুতের ব্যাপক লোডশেডিং। এরই ফলে প্রতিনিয়ত বিদ্যুতের অসহনীয় লোডশেডিংয়ে জনজীবন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছে। এমনকি মফস্বল কোন কোন এলাকায় সারা দিন-রাতে বেশির ভাগ সময় বিদ্যুৎ থাকছেনা। ফলে চরম দূর্ভোগে পরেছেন গ্রহকরা।

উপজেলার সদরের আলীম, মুন্টু, মামুন, এমদাদুল, উজ্জল, রেজাউলসহ আরও অনেকেই জানান, গত দুই দিন থেকেই ইফতার, সেহরী ও নামাজের সময়সহ রাত-দিন দীর্ঘ সময় বিদ্যুৎ পাচ্ছি না। এতে করে আমরা পল্লী বিদ্যুতের গ্রহকরা চরম দূর্ভোগে পড়েছি। এই অসহনীয় লোডশেডিং বন্ধ করার দাবি জানিয়েছেন গ্রহকরা।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকটি মসজিদের ইমামরা চরম ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, তারাবি শুরুর দিন থেকেই আমরা বিদ্যুৎ পাচ্ছি না। মুসল্লিদের নিয়ে খুব কষ্ট করে নামাজ আদায় করতে হচ্ছে।

এ ব্যাপারে নওগাঁ পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি-১ এর রাণীনগর জোনাল অফিসের ডিজিএম মো: আকিয়াব হোসেন বলেন, গত কয়েকদিন থেকে চাহিদার তুলনায় বিদ্যুৎ কম পাওয়ায় লোডশেডিং বৃদ্ধি পেয়েছে। এটা শুধু রাণীনগর উপজেলায় নয় বিভিন্ন উপজেলাতেও একই অবস্থা। আশা করছি দ্রুত এই সমস্যা সমাধান হবে।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *