সেপ্টেম্বর ২৮, ২০২০
২:৫৯ অপরাহ্ণ

সিলেট আদালতে ধর্ষকের পক্ষে নেই কোনো আইনজীবী, বাদী চাইলে দেওয়া হবে বিনামূল্যে সেবা

খবর ডেস্কঃ- এমসি কলেজের ছাত্রাবাসে স্বামীকে আটকে রেখে গৃহবধূ ধর্ষণের ঘটনার মামলায় মামলার আসামীদের পক্ষ নেই সিলেটের আইনিজবীরা। বাদী চাইলে বিনামূল্যে সেবা দেওয়া হবে। সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) এমনটাই জানিয়েছেন সিলেট আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দরা।

সোমবার (২৮ সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টা ৪০ মিনিটে সংঘবদ্ধ ধর্ষণ মামলার  প্রধান আসামী এম সাইফুর রহমান ও ৪নং আসামী অর্জুন লস্করকে আদালতে হাজির করা হয়েছে। এ সময় সিলেট মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রট ২য় আদালতের বিচারক সাইফুর রহমান তাদেরকে  ৫ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন। এ সময় আসামীদের পক্ষে কোনো আইনজীবী দেখা যায় নি। বিক্ষুব্ধ আইনিজীবীরা নিন্দা ও প্রতিবাদ জানিয়ে তাদের দৃষ্টান্ত শাস্তির দাবি জানান।

গৃহবধূকে সংঘবদ্ধ ধর্ষণের ঘটনায় তীব্র নিন্দা জানিয়ে সিলেট জেলা আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দরা জানান, আধ্যাত্মিক নগরী খ্যাত সিলেটের ঐতিহ্যবাহী গৌরবময় এমসি কলেজ। এই কলেজকে যারা কলুষিত করেছে তাদের পক্ষে আইনজবীরা নেই। সকল আইনজীবীরা এক হয়ে এমন সিদ্ধান্ত। ন্যাক্কাজনক ঘটনার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবি জানিয়েছেন তারা। অনতিবিলম্ভে সকল আসামীদের গ্রেফতার দাবি জানান সিলেটের আইনিজীবীরা।

তারা আরো জানান, বাদী পক্ষ চাইলে তাদের বিনামূল্যে সেবা দিবে সিলেটের আইনিজীবীরা। আসামীদের সর্বোচ্চ শাস্তি দিতে সিলেটের আইনজীবীরা ঐক্যবদ্ধ।

এদিকে এমসি কলেজের অধ্যক্ষ ও হোস্টেল সুপারের দায় এড়াতে ছাত্রাবাসের দুই নৈশপ্রহরীকে বহিষ্কারের নিন্দা জানিয়েছেন তারা। কলেজের অধ্যক্ষ ও হোস্টেল সুপারের অপসারণের দাবি জানান সিলেটের আইনজীবী সমিতির নেতৃবৃন্দরা।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার এমসি কলেজে স্বামীর সঙ্গে বেড়াতে গেলে সন্ধ্যায় স্বামীর কাছ থেকে ওই গৃহবধূকে জোর করে তুলে নিয়ে ছাত্রাবাসে ধর্ষণ করে ছাত্রলীগের নেতাকর্মীরা। এ সময় কলেজের সামনে তার স্বামীকে আটকে রাখে দুজন।

এ ঘটনায় গৃহবধূর স্বামী বাদী হয়ে শাহপরান থানায় মামলা করেছেন। মামলা ছাত্রলীগের ৬ নেতাকর্মীসহ অজ্ঞাত আরও ৩ জনকে আসামি করা হয়েছে।

এ ঘটনায় গত রোববার সকাল ৮টার দিকে সুনামগঞ্জের ছাতক উপজেলার সীমান্তবর্তী এলাকা নোয়ারাই খেয়াঘাট থেকে মামলার প্রধান আসামি সাইফুর রহমানকে গ্রেফতার করা হয়। হবিগঞ্জের মাধবপুর উপজেলার মনতলা সীমান্ত এলাকা থেকে জকিগঞ্জের আটগ্রামের কানু লস্করের ছেলে অর্জুন লস্করকে গ্রেফতার করেছে সিলেট জেলা পুলিশ। রাতে শায়েস্তাগঞ্জ থেকে মাহবুবুর রহমান রনিকে গ্রেফতার করেছে র‌্যাব। রবিউল ইসলামকে হবিগঞ্জের নবীগঞ্জ থেকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। এছাড়াও মধ্যরাতে ফেঞ্চুগঞ্জ  থেকে রাজন আহমেদকে গ্রেফতার র‍্যাব-৯।

শেয়ার করুন

Related Articles

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *